উৎসব ভাতা বৈষম্যের শিকার প্রাথমিক দপ্তরীরা অনিশ্চয়তায় ঈদ ও নববর্ষ উৎসব।

উৎসব ভাতা বৈষম্যের শিকার প্রাথমিক দপ্তরীরা অনিশ্চয়তায় ঈদ ও নববর্ষ উৎসব।

দপ্তরী কন্ঠের এডমিন  আসাদুল ইসলাম বলেন। আমরা বিগত ৮ বছর যাবত প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োজিত আছি।

চাকরির শুরু থেকে আমরা নববর্ষ ও ঈদ বোনাস পাচ্ছিলাম। একটি পরিপত্র এর মাধ্যমে উৎসব ভাতা বেতনের সঙ্গে সমন্বয় করা হয়। কিছু কিছু উপজেলায় উৎসব ভাতা পেলেও অধিকাংশ উপজেলায়, উৎসব ভাতা বেতনের সঙ্গে সমন্বয় করে দেওয়া হয়।

আমরা বিভিন্ন ভাবে একাধিকবার অধিদপ্তরে যোগাযোগ করলে আমাদের বোনাস রেখে সমস্যা  সমাধান করবে বলে আশ্বস্থ করলেও এখন পর্যন্ত সমস্যা সমাধান  হয়নি।

যেখানে গার্মেন্টস শ্রমিক,বিভিন্ন প্রাইভেট কোম্পানির কর্মচারীগণ,হোটেল বয়,চা দোকানের কর্মচারীরা উৎসব ভাতা পেয়ে থাকেন। অথচ সেখানে আমরা সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করেও প্রাথমিকের দপ্তরী কাম প্রহরীরা উৎসব ভাতা হতে বঞ্চিত।

এই  সামান্য বেতনে চাকরি করে পরিবার-পরিজন নিয়ে নববর্ষ ও ঈদের আনন্দ থেকে আমরা বঞ্চিত ।

এমতাবস্থায় উর্ধতন কর্তৃপক্ষ আসন্ন নববর্ষ ও ঈদ উৎসবের আগেই বোনাস রেখে সমস্যা সমাধান করে আমাদের পরিবারের সঙ্গে হাসি খুশিতে নববর্ষ ও ঈদ উৎসব উদযাপনের দাবি জানায়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

ব্রেকিং নিউজ